তিন কারণে বিএনপির মন খারাপ হয়ে গেছে – ওবায়দুল কাদের

30
Web hosting

এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: তিন কারণে বিএনপির মন খারাপ হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘প্রথম কারণ, ষোড়শ সংশোধনী রায়ে নতুন একটি ইস্যু পেয়ে এখান থেকে ফায়দা পাওয়া যাবে বলে ব্যারিস্টার মওদুদ পরামর্শ দেওয়ার পরই বিএনপিতে জগাই-মাধাই শুরু হয়ে গেছে। আজকে সেই রঙিন খোয়াবের জমিন ক্রমেই মরুময় হয়ে যাচ্ছে।

দ্বিতীয় কারণ, গত ১৫ আগস্ট ভোরে আরেকটা ১৫ আগস্ট, আরেকটা একুশে আগস্টের মতো জঙ্গিবাদি হত্যাযজ্ঞ ঘটানোর পরিকল্পনা পণ্ড হওয়ার পর বিএনপির মন খারাপ। পাঁচশ মানুষকে হত্যার পরিকল্পনা ছিল। শেখ হাসিনাকে হত্যার পরিকল্পনা ছিল। আল্লাহ রক্ষা করেছেন। আর তৃতীয় কারণ, জন্মদিবসের কেক, বন্যার্তদের নাম নিয়ে মায়াকান্না দেখাচ্ছেন। আসলে জনগণের অবরুদ্ধতার মুখে কেক কাটতে না পেরে তাদের মন খারাপ।’

বঙ্গবন্ধুর ৪২তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে বৃস্পতিবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় ওবায়দুল কাদের প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সচিবালয় কর্মকর্তা ও কর্মচারী ঐক্য পরিষদ আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন নন-ক্যাডার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম।

বক্তব্যে ষোড়শ সংশোধনীর রায় সম্পর্কে সরকার ও দলীয় অবস্থান রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করা সরকার ও দলীয় প্রধান হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। বুধবার (১৬ আগস্ট) বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ করতে যান। এসময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গী ছিলেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। ওবায়দুল কাদের জানান, সাক্ষাতে রাষ্ট্রপতির শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নেওয়ার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী দেশের চলমান ভয়াবহ বন্যা সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেছেন।

ষোড়শ সংশোধনীর রায় পরিবর্তন করতে সরকার প্রধান বিচারপতির ওপর চাপ প্রয়োগ করছে— বিএনপি মহাসচিবের এমন অভিযোগের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘কে কাকে চাপ দিয়ে কী করছে— এই গুজব কোথা থেকে আসছে? ওই পদের কাউকে চাপ দিয়ে কিছু করানো যাবে? এই কথা বলে তো তাদেরকে ছোট করা হচ্ছে।’

বিএনপিকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘‘এই যে লাফালাফি করছেন, রায়ে ‘ব্যানানা রিপাবলিকের অবৈধভাবে ক্ষমতা গ্রহণ’ অংশ পড়েননি? আমার মনে হয় পড়েছেন। পড়েই নিরবতা পালন করছেন। এই নিরবতার মানে হচ্ছে— আপনারা এই অংশ মেনে নিয়েছেন।’’

এ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘আমরা লাফালাফি করছি না। আমাদের মধ্যে কোনও অস্থিরতা নেই। কারণ জনগণ আমাদের ক্ষমতার উৎস। জনগণ ক্ষমতায় রাখতে পারে, জনগণ ক্ষমতা থেকে বিদায় করতে পারে। যাদের ক্ষমতার উৎস জনগণ নয় তারা একটা ইস্যু পেলেই লাফালাফি করে। আট বছরে আট মিনিটও রাজপথে থাকতে পারেন না, লজ্জা করে না?’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘মন খারাপ করে বিএনপি এখন রাজনীতির বেপরোয়া ড্রাইভারের মতো হয়ে গেছে। যেকোনও সময় একটা দুর্ঘটনা ঘটাতে পারে। সবাই সতর্ক থাকবেন, সজাগ থাকবেন। আঘাতে আঘাতে আমরা স্তিমিত নই। আমরা বঙ্গবন্ধুর সৈনিক, আমরা এগিয়ে যাব।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রতি কাদের বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুনর্বাসন করে কী লাভ হয়েছে? জিয়াউর রহমান যদি বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুনর্বাসন না করত, তাহলে আরেকটি খুনি চক্র জিয়াকে হত্যার দুঃসাহস দেখাত না। যে বুলেট শেখ হাসিনাকে, শেখ রেহানাকে এতিম করেছে, সেই বুলেটই খালেদা জিয়াকে বিধবা করেছে। হত্যার রাজনীতি থেকে আপনারাও রেহাই পাননি।’