এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ির পশ্চিমপাড়ায় ভাড়াটিয়া দম্পত্তির ঝগড়া থামাতে গিয়ে বাড়ির কর্ত্রী সেলিনা আক্তার(৪৬) খুন হয়েছেন। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত গৃহকর্ত্রী সেলিনা আক্তার সিদ্ধিরগঞ্জ ৯ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি বাবুল প্রধানের স্ত্রী।

এঘটনার নারায়ণগঞ্জ পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: শরফুদ্দিন বলেন, জালকুড়ি পশ্চিমপাড়া এলাকার বাবুল প্রধানের বাড়ির ভাড়াটিয়া সোলেমান (৫০) এবং ময়না (৩৫) দম্পত্তির মধ্যে পারিবারিক কলহ নিয়ে বাকবিতন্ডা হয়।

বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে খবর পেয়ে বাড়িওয়ালা বাবুল প্রধানের স্ত্রী সেলিনা আক্তার ঝগড়া থামাতে আসলে ঘটনার এক পর্যায়ে সোলেমান ক্ষিপ্ত হয়ে সেলিনা আক্তারের গলায় ছুরিকাঘাত করে। পরে সোলেমানের স্ত্রী ময়না ও অন্য ভাড়াটিয়ারা সেলিনাকে নারাযণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতাল ও পরে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে সেলিনা মারা যায়। হত্যাকান্ডের ঘটনার পর থেকেই ভাড়াটিয়া সোলেমান পলাতক রয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরফুদ্দিন আরো জানান, এর আগে সোলেমান তার স্ত্রী ও একমাত্র মেয়েকে খুন করার জন্য নিজের সাথে করে ধারালো অস্ত্র নিয়ে আসে। তবে সোলেমান ও ময়নার বাকবিতন্ডার সময় বাবুল প্রধানের স্ত্রী সেলিনা এসে তাদের শান্ত করতে চাইলে সোলেমান এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে সেলিনাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

সোলেমান দীর্ঘদিন অস্ট্রেলিয়ায় ছিলেন। ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে সে বাংলাদেশে আসে এবং সে সময় থেকেই স্বামীস্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। সোলেমান মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার আকিজ মিয়াজির ছেলে। গতকাল বুধবার বিকেল ৪টায় এ সেলিনার লাশের ময়না তদন্ত শেষে লাশ তার নিজ বাড়ি জালকুড়িতে নিয়ে আসা হয়েছে। বাদ আছর নামাজের পর জানাযা শেষে জালকুড়ি কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে। সোলেমানকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।