এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: আগামী মাসেই ঘোষণা করা হবে চলচ্চিত্র জগতের সবচেয়ে বড় পুরস্কার ‘অস্কার’ বা অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডস৷ দেখা যাক কোন কোন ছবি এবার সেরা ছবির ক্যাটেগরিতে মনোনয়ন পেয়েছে৷

অ্যারাইভাল

এলিয়েনরা কোন ভাষায় কথা বলে? হঠাৎ পৃথিবীতে নেমে এলো ১২টি মহাকাশযান৷ মহাকাশযানগুলোর যাত্রীরা এলিয়েন৷ এক প্রফেসরকে দেয়া হলো এলিয়েন আর পৃথিবীর মানুষের মাঝে দোভাষী হিসেবে কাজ করার দায়িত্ব৷ এ ছবির পরিচালক ডেনিস ভিলেন্যুভ৷ সেরা ছবির ক্যাটেগরিতে মনোনয়ন পেয়েছে ‘অ্যারাইভাল’ আর সেরা পরিচালক পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন ডেনিস ভিলেন্যুভ৷

ফেন্সেস

সেরা ছবির দৌড়ে থাকা এ ছবিতে অভিনয় করায় সেরা অভিনেতার ক্যাটেগরিতে মনোনয়ন পেয়েছেন ডেনজেল ওয়াশিংটন৷ অগাস্ট উইলসনের পুলিৎজার জয়ী উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি এ ছবির পরিচালকও তিনি৷ এ কারণে সেরা পরিচালক পুরস্কারের জন্যও মনোনয়ন পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের এই অভিনেতা-পরিচালক৷

হ্যাকস’ রিজ

এ ছবির পরিচালক মেল গিবসন৷ এটিও সেরা ছবি ক্যাটেগরিতে মনোয়ন পেয়েছে৷ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অংশ নেয়া এক মার্কিন সেনা চিকিৎসককে নিয়ে তৈরি ছবিতে অভিনয়ের সুবাদে লিড অ্যান্ড্রু গারফিল্ড পেয়েছেন সেরা অভিনেতা পুরস্কারের মনোনয়ন৷

হেল অর হাই ওয়াটার

টেক্সাসে দুই সহোদর ব্যাংক ডাকাতি করবে৷ এখান থেকেই শুরু হয়েছে ডেভিড ম্যাকেঞ্জি পরিচালিত এই ছবি৷ কান চলচ্চিত্র উৎসব এবং গোল্ডেন গ্লোবের মতো অস্কারেও সেরা ছবির মনোনয়ন পেয়েছে ‘হেল অর হাই ওয়াটার’৷ এ ছবিতে অভিনয় করে সেরা পার্শ্ব অভিনেতা পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন ক্রিস পাইন, বেন ফস্টার এবং জেফ ব্রিজ৷

হিডেন ফিগার্স

এ ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্র এক আফ্রিকান-অ্যামেরিকান নারী যিনি গাণিতিক তথ্য-উপাত্ত দিয়ে নাসা-কে স্পেস মিশনে সহায়তা করেছিলেন৷ সত্যি ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত এ ছবির পরিচালক টিওডর মেলফি৷ সেরা ছবির ক্যাটেগরিতে মনোনয়ন পাওয়া এ ছবির অভিনয়শিল্পীও পেয়েছেন সেরা পার্শ অভিনেতার মনোনয়ন৷

লা লা ল্যান্ড

এই মিউজিক্যাল কমেডিড্রামা ইতিমধ্যে গোল্ডেন গ্লোব থেকে সর্বোচ্চ সাতটি পুরস্কার জয় করেছে৷ অস্কারেও বাজিমাত করার সম্ভাবনা থাকছেই, কেননা, এখানেও ১৪টি মনোনয়ন পেয়েছে ‘লা লা ল্যান্ড’৷

লায়ন

কলকাতায় হারিয়ে যাওয়া এক ভারতীয় বালকের জীবন নিয়ে তৈরি এ ছবিটি ছয়টি মনোনয়ন পেয়েছে৷ হারিয়ে যাওয়া ছেলেটিকে দত্তক নেয় অস্ট্রেলিয়ার এক দম্পতি৷ ২৫ বছর পর নিজের পরিবারকে খুঁজে বের করার চেষ্টা শুরু করে সেই ছেলে৷

ম্যানচেস্টার বাই দ্য সি

কেনেথ লোনারগান এ ছবিতে এক মধ্যবয়সি এবং এক কিশোরের সম্পর্ককে তুলে ধরায় প্রশংসনীয় মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন৷ ছেলেটি ওই মধ্যবয়সির ভাইয়ের সন্তান৷ ভাই মারা যাওয়ায় ভাতিজার দেখভালের দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি৷ এ ছবিতে অভিনয়ের জন্য ইতিমধ্যে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার জিতেছেন বেন অ্যাফ্লেকের ভাই ক্যাসি অ্যাফ্লেক৷

মুনলাইট

নিজের লেখা কাহিনিই চিত্রায়িত করেছেন পরিচালক ব্যারি জেনকিন্স৷ গোল্ডেন গ্লোবে বেস্ট ড্রামা ক্যাটেগরিতে পুরস্কার জেতা এ ছবি অস্কারে সেরা ছবির দৌড়েও জিতে গেলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না৷

টোনি অ্যার্ডমান

এটি জার্মান ছবি৷ মনোনয়ন পেয়েছে সেরা বিদেশি ছবি ক্যাটেগরিতে৷ পুরস্কার জিতে গেলে ১১ বছর পর আবার অস্কার জিতবে কোনো জার্মান ছবি৷ – ডয়চে ভেলে