অস্বচ্ছল বিচারপ্রার্থীর ২৯৮ মামলা নিষ্পত্তি করেছে সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইড

104
Web hosting

এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান আইনের অধীনে সরকারি খরচে সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইড’র মাধ্যমে ইতোমধ্যে আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল, সহায় সম্বলহীন, অসমর্থ বিচারপ্রার্থীর ২শ’ ৯৮ মামলা উচ্চ আদালতে নিস্পত্তি হয়েছে। সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটির সদস্য সচিব ও সহকারী এটর্নি জেনারেল এডভোকেট টাইটাস হিল্লোল রেমা এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, ২০১৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটির অফিস উদ্বোধন করা হয়। সেই থেকে ২০১৭ সালের মার্চ পর্যন্ত সময়ে এসব মামলার নিস্পত্তি হয়। এ সময়ে সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইড অফিস অস্বচ্ছল বিচারপ্রার্থীর ৫৫৫টি আবেদন গ্রহণ করে। এর মধ্যে ৪৯৭ টি মামলায় লিগ্যাল এইড অফিস থেকে আইনজীবী নিয়োগ দেয়া হয়। এর মধ্যে ২৯৮টি মামলা নিস্পত্তি হয়েছে। মামলায় সহায়তার পাশাপাশি ১২শ’ ৩২ জন বিচারপ্রার্থীকে লিগ্যাল এইড অফিস থেকে মৌখিকভাবে আইনি পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

তিনি জানান, নিস্পত্তি হওয়া মামলাগুলোর মধ্যে রয়েছে দেওয়ানী আপিল ৪টি, দেওয়ানী রিভিশন ৯টি, ফৌজদারী আপিল ৫টি, ফৌজদারী রিভিশন ২টি, রিট পিটিশন ২টি, লভ টু আপিল ৭টি ও জেল আপিল ২৬৯টি।
তিনি বলেন, বিচারের দীর্ঘসূত্রিতার ফলে কারাগারে আটক বিচারপ্রার্থীদের বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইড অফিস। সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইড অফিসের তত্ত্ববধানে ৮৬ জন প্যানেল আইনজীবী নিয়োজিত রয়েছেন।

তিনি জানান, ‘৫ থেকে ১০ বছর পর্যন্ত মামলা নিষ্পত্তি না হয়েও কারাগারে আটক হাজতীদের তালিকা চেয়ে কারাগারে চিঠি পাঠায় লিগ্যাল এইড কমিটি। পরে আইজি প্রিজন্স কার্যালয় মোট ৪৬২ জনের নামের তালিকা দেয়। এ তালিকার মধ্যে ৫৮ জনের বিষয়ে আদালতের নজরে আনা হলে ১৮ জনকে জামিন দেয় আদালত। বাকী ৪০৪ জনের বিষয় নিয়ে কাজ চলছে।

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল, সহায় সম্বলহীন, অসমর্থ বিচারপ্রার্থী জনগণকে সরকারি খরচে আইনি সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে “আইনগত সহায়তা প্রদান আইন-২০০০” প্রণয়ন করে। তারপরের সরকারগুলো আইনটি কার্যকরে উল্লেখযোগ্য কোন পদক্ষেপ নেয়নি। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠনের পর আওয়ামী লীগ দরিদ্র ও অসচ্ছল জনগণের বিচারপ্রাপ্তি নিশ্চিতে আইনটি কার্যকরে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করে। ২০০০ সালে প্রণীত আইনটি অনুযায়ি “জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা” গঠন করা হয়। রাজধানীর ১৪৫, নিউ বেইলী রোডে এ সংস্থার প্রধান কার্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। এর ব্যাপ্তি সুপ্রিমকোর্ট, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত নেয়া হয়েছে। –বাসস