এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: পশ্চিমি দেশগুলিতে মুসলিম নারীদের বোরকা পরা নিয়ে বিতর্ক নতুন নয়। সম্প্রতি একের পর এক জঙ্গি হামলার শিকার হয়েছে ইংল্যান্ড, ফ্রান্স-সহ ইউরোপের প্রায় সবদেশই। এই প্রেক্ষাপটে নিরাপত্তার স্বার্থেই বোরকা নিষিদ্ধ করার দাবিও ক্রমশই জোরদার হচ্ছে এই সকল দেশগুলিতে। বোরখা নিষিদ্ধ করার দাবিতে অস্ট্রেলিয়ার সংসদে এই নারী সাংসদ যা করলেন তা অবশ্যই বিব্রতকর।

অস্ট্রেলিয়ার সংসদে যেভাবে বোরখা নিষিদ্ধ করার দাবি পেশ করলেন সেনেটর পাওলিন হানসন, তাতে গোটা বিষয়টি ভিন্ন মাত্রা পেয়েছে। তবে সেনেটরের আচরণে সমালোচনার ঝড় উঠেছে অস্ট্রেলিয়ায়। অ্যাটর্নি জেনারেল জর্জ ব্রেন্ডিস সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, অস্ট্রেলিয়ায় বোরখা নিষিদ্ধ করার কোনও পরিকল্পনা নেই সরকারের।

জানা গেছে, অস্ট্রেলিয়ায় বোরকা নিষিদ্ধ করার দাবিতে সংসদের অধিবেশন বোরকা পরেই হাজির হন দক্ষিণপন্থী দল ‘ওয়ান নেশন পার্টি’-এর এই সেনেটর। সংসদের দৈনিক প্রশ্নোত্তর পর্ব চলাকালীন প্রায় মিনিট কুড়ি বোরকা পরেই সংসদে বসেছিলেন হানসন। এরপর একসময়ে নাটকীয় কায়দায় বোরকাটি খুলে প্রকাশ্য স্থানে মুসলিম মহিলাদের চিরাচরিত পোশাকটিকে নিষিদ্ধ করার দাবি করেন তিনি।

পাওলি হানসন বলেন, ‘আমি এটা খুলে ফেলতে পেরে খুবই খুশি। কারণ এই ধরনের পোশাক পরে সংসদে আসা উচিত নয়। কেউ যদি হেলমেট বা টুপি পরে ব্যাঙ্ক, আদালত বা অন্য কোনও ভবনে যায়, তাহলে সেই ব্যক্তিকে টুপি বা হেলমেট খুলতে ফেলতে হয়। তাহলে যিনি নিজের মুখটাকেই ঢেকে রাখছেন এবং তাকে চেনা যাচ্ছে না, তার ক্ষেত্রেই বা একই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না কেন?’

সেনেটর পাওলিন হানসনের এই আচরণের কড়া সমালোচনা করেছেন অস্ট্রেলিয়ার অ্যার্টনি জেনারেল জর্জ ব্রেন্ডিস।

তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, বোরখা নিষিদ্ধ করার কোনও পরিকল্পনা নেই অস্ট্রেলিয়া সরকারের। পাশাপাশি, সংসদে দাঁড়িয়ে কোনও ধর্মের ভাবাবেগে আঘাত করা নিয়ে বিরোধী দলের এই সেনটরকে সতর্ক করে দিয়েছেন তিনি।

সূত্র : বিডিপ্রতিদিন)