এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: শিক্ষিকার অশ্লীল ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগই উঠল ভারতের লক্ষ্ণৌ বাবাসাহেব ভীমরাও আম্বেদকর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯ ছাত্রের বিরুদ্ধে। ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে।

অভিযোগকারিণী শিক্ষিকার নাম নীতু সিং। বিশ্ব বিদ্যালয়ের হোম সায়েন্স বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর পদে রয়েছেন তিনি। শুক্রবারই আশিয়ানা পুলিশ স্টেশনে ৯ ছাত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন নীতু সিং।

তাঁর অভিযোগ, গত ১১ আগস্ট তার অশ্লীল ছবি ফেইসবুকের একটি ওয়েবপেজে আপলোড করা হয়ে। এর পর থেকে তাকে নিয়ে একাধিক কুরুচিকর মন্তব্য করা হয়েছে। একজন নারী হিসেবে এতে তার সম্মানহানি হয়েছে।

অভিযুক্ত ছাত্রদের নাম বসন্ত কনৌজিয়া, অজয় কুমার, শ্রেয়াত বৌদ্ধ, সন্দীপ শাস্ত্রী, রমেন্দ্র নরেশ, অশ্বিনী রঞ্জন, জয় সিং, সন্দীপ গৌতম ও সুমিত কুমার। প্রত্যেকের বিরুদ্ধে নারীর সম্মানহানি ও কম্পিউটার ব্যবহার করে অশ্লীল মেসেজ ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয়েছে।

এই ঘটনায় শোরগোল পড়েছে বাবাসাহেব ভীমরাও আম্বেদকর বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে। শিক্ষিকার পক্ষে দাঁড়িয়েছেন এক পক্ষ। আবার অভিযুক্ত ছাত্রদের হয়েও প্রশ্ন করেছেন অনেকে। তাদের মতে অভিযুক্তদের অনেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে সুবিধার অধিকার নিয়ে লড়াই করেন। সেই কারণেই তাঁদের ফাঁসানো হচ্ছে।

তবে শিক্ষিকার দাবি, এমন ঘটনায় সামাজিকভাবে তার সম্মানহানি হয়েছে। তাই অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি। ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের তরফে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে তদন্ত আইন মেনেই এগোবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।