এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: ব্যস্ত সময়। যুগের সঙ্গে মানিয়ে নিতে ছুটচ্ছে মানুষ। হাজার প্রতিকূলতা দূরে সরিয়ে পুরুষের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সমান গতিতে এগিয়ে চলেছেন মহিলারা। সামাজিকতার আড় ভেঙে আজ তাঁরা রাজপথে। নারী-যুগের সূচনায়।

নয়া যুগের সূচনা ঘটলেও আজও তাঁদেরকে নানান সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। ট্রেনে বাসে অযাচিত স্পর্শ-হেনস্তা-লালসার শিকার হতে হয়। বাস-ট্রেন এমনকি মেট্রোয় প্রতিনিয়ত যৌন হেনস্তার শিকার তামাম বিশ্বের প্রথমা’রা।  কিন্তু, কেন দিনের পর দিন হেনস্তারা মুখোমুখি হবেন তাঁরা। এর শেষই বা কোথায়? বোধহয়, এর বিকল্প আছে। আর সেই বিকল্প বাছতে কাঁটা দিয়ে কাঁটা তোলাই চেষ্টা করল মেক্সিকো সিটির মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। মহিলা যাত্রীদের উপর যৌন হেনস্তা রুখতে অভিনব পন্থা অবলম্বন করল মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ।

কী সেই নয়া পন্থা?

মহিলা যাত্রীদের উপর পুরুষ যাত্রীদের লোলুভ নজর ঘোড়াতে বিশেষ পুরুষ সিটের ব্যবস্থা করল মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। সাধারণত, মেট্রোয় আট-নয় জন বসার জন্য লম্বায় এক সারি বসার সিট থাকে। ওই আট-নয় জনের বসার সিটের মাঝখানে এমন একটি সিটের ব্যবস্থা করা হয়েছে, যা দেখে স্বাভাবিক ভাবেই বিব্রত বোধ করবেন যাত্রী। সিটটি একটু অন্য ধরণের।

পুরুষের শরীরের আদলে সিটটি বসানো হয়েছে। রয়েছে বুক-পেট। বসার অংশে রয়েছে পুরুষের যৌনাঙ্গের আদলে উঁচু একটি অংশ। দূর থেকে দেখলে মনে হবে, নগ্ন পুরুষ পুতুল বসিয়ে রাখা হয়েছে সিটে। চেহারা এমন, ভিড় মেট্রোয় ফাঁকা সিট দেখেও বসতে চাইছেন না যাত্রীরা। বসার চেষ্টা করলেও বাধ্য হয়েই উঠে যেতে হচ্ছে যাত্রীদের। পাশের বসে থাকা যাত্রীদের তির্যক দৃষ্টি, মুচকি হাসি ও ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য শুনেও বেশ বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে তাঁদের।