এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: এই প্রথমবার সমকামী বিয়ের সাক্ষী থাকল ব্রিটেন৷ এক হিন্দু মহিলা বিয়ে করলেন এক ইহুদি মহিলাকে৷ এমনকি বাধা হল না তাদের ধর্ম৷ তাদের নাম কলাবতী মিস্ত্রি ও মিরিয়াম জেফারসন৷ বিয়ের পর দুজনেই ফিরে গেছেন আমেরিকা৷ সেখানে দুজনেই চাকরি করেন৷ চাকরির পাশাপাশি সেখানেই দুজনে ঘর বাঁধবেন৷

কলাবতী মিস্ত্রি ও মিরিয়াম জেফারসন দুজনেই টেক্সাসের বাসিন্দা৷ ২০ বছর আগে আমেরিকায় এক ট্রেনিং কোর্সে তাদের আলাপ হয়৷ ধীরে ধীরে গড়ে ওঠে বন্ধুত্ব৷ সেই বন্ধুত্ব থেকে প্রেম৷ তারপর বিয়ে৷ গত সপ্তাহে তারা বিয়ে করেন৷ দুজনের ধর্ম আলাদা ৷

তাই দুই ধর্মের নিয়ম মেনেই হল বিয়ে৷ দুজনেই পরেছিলেন ট্র্যাডিশনাল লাল ও সাদা পোশাক৷ গলায় ছিল ফুলের মালা৷ হিন্দু ধর্ম অনুযায়ী দুজনের গলায় ছিল মঙ্গলসূত্র ৷

তবে পরিস্থিতি কিন্তু বরাবর এরকম ছিল না৷ তিনি যে সমকামী, তা জানতেন কলাবতী৷ কিন্তু প্রকাশ করতে পারেননি৷ ভয় ছিল, কেউ জানলে তাকে হয়তো ভালো চোখে দেখবে না৷ ভয় অবশ্য অমূলক ছিল না৷ তার সংস্কার ও ধর্ম নিয়ে চিন্তিত ছিলেন কলাবতী৷ তাই পরিবার তো বটেই, বন্ধুদেরও বলতে পারেননি তিনি সমকামী৷ বছরের পর বছর একথা লুকিয়ে রেখেছিলেন ৷

একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে কলাবতী বলেছেন, “এশিয়ার সমকামী মহিলা হিসেবে নিজেকে মেনে নেওয়া আমার কাছে কঠিন ছিল৷” তবে এবার আর সেই ভয় নেই৷ একবাক্যে তিনি স্বীকার করেন, তার পার্টনার যথেষ্ট সাপোর্টিভ৷ যা নিয়ে তিনি ভয় পাচ্ছিলেন, সেই পরিবার ও বন্ধুরাও তার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে৷ মিরিয়ামের সঙ্গে তাদের ভালো সম্পর্ক গড়ে উঠেছে ৷

কলাবতী ও মিরিয়ামের বিয়ে দেন এক হিন্দু মহিলা পুরোহিত৷ নাম চন্দা ব্যাস৷ ইংল্যান্ডের একটি রেস্তোরাঁয় বসে তাদের বিয়ের আসর৷ মিরিয়াম জানিয়েছেন, এ বছরের গোড়ার দিকে তারা টেক্সাসের সান অ্যান্তোনিওতে ইহুদি মতে বিয়ে করেন৷ এবার তাদের হিন্দু মতে বিয়ে হল৷ মিরিয়াম বলেন “এবার হিন্দু মতে বিয়ে হল৷ আমার চোখে এই বিয়ে আমাদের সম্পূর্ণ করল৷” ৷