balconyশহরের বসতবাড়ি যেন কংক্রিটের তৈরি এক ধরনের খাঁচা। এসকল বদ্ধ বাড়িতে প্রতিনিয়তই আমাদের জীবন হাঁসফাঁস করে। এই হাঁসফাঁসের জীবনে একটু শান্তির পরশ আনতে আমাদের সাহায্য করে বাড়ির ছোট্ট বারান্দাটি। একটু সময় করে সহজেই বাড়ির ছোট্ট বারান্দাকে গাছ দিয়ে সাজিয়ে, আমাদের জীবনে নিয়ে আসতে পারি সবুজের ছোঁয়া।

যেকোনো ছুটির দিনে পরিবারের সবাইকে নিয়ে বাড়ির বারান্দায় গড়ে তোলা যায় ছোট-খাটো একটি বাগান। শিকায় বাহারি রঙের ফুলের টবের সাথে রেলিংয়ে রাখুন ছোট ছোট গাছের টব। এর তাতে সাজিয়ে রাখা যায় নানা ধরনের ক্যাকটাস, অর্কিড, বাহারি ফুল। দেয়ালের রঙের সঙ্গে মিল দেখে টবের রঙ করে নিতে পারলে বারান্দাটি আরও বেশ আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে। যদি বরান্দার উপরটা খোলা থাকে, তাহলে চাইলে একটি ছাতা টানিয়ে দিতে পারেন। আর রাতের বেলায় বারান্দাটিকে আরও আকর্ষণীয় করতে নানা রঙের আলো ব্যবহার করা যায়। বড় গোলাকার ল্যাম্প লাগিয়ে নিলে, তাতে বেশ একটা থিম-লুক আসবে বারান্দায়।

যেকোনো দিন সময় নিয়ে বারান্দাটিতে করে নিতে পারেন পছন্দের পেইন্ট, আর সেই পেইন্টের রঙ অনুযায়ী লাগানো যায় ফুলের গাছ। এটা দেখতে আরও আকর্ষণীয় লাগবে। মাপের দিক থেকে যদি একটু বড় বারান্দা হয়, তাহলে একটি ছোট্ট টেবিল ও ইজি চেয়ার রাখা যেতে পারে। টেবিল ও ইজি চেয়ারে এমন রঙ ব্যবহার করতে হবে, যাতে তা চোখে বেশি ক্যাটক্যাটে না লাগে। দিনের আলোয় যেমন ভালো লাগবে, রাতের আলোতেও ঠিক তেমনই দৃষ্টি আকর্ষণ হবে এমন লুক আনতে হবে। তাছাড়াও টবের মধ্যে নানা আকৃতির রঙিন পাথর ছড়িয়ে দেয়া যায়।

চাইলে ফুল গাছের পাশাপাশি নিজের বারান্দায় করে নেয়া যায় ভেষজ কিছু গাছের চাষ। এসব ভেষজ রান্নার কাজে লাগার সাথে সাথে বারান্দার জায়গাটিকেও সুন্দরভাবে সাজানো হবে। চারকোণা বা গোলাকার কাঠের কিংবা প্লাস্টিকের ট্রেতে তুলসী গাছ, কারি পাতা, মিন্ট, রোজমারিসহ ভেষজ গাছ সহজেই লাগানো যেতে পারে বারান্দায়। এক্ষেত্রে শুধু প্রয়োজন একটু নিয়মিত যত্ন নেয়া। তাছাড়াও অনেকেই শখ করে বনসাই গাছের চর্চা করেন। আর বনসাই চর্চার অন্যতম জায়গাও হতে পারে বাড়ির বারান্দাটি। বারান্দায় নিয়মিত যত্নের ফলে অনায়াসে করতে পারেন বনসাইয়ের চাষ।

বারান্দার এই সুন্দর পরিবেশ, সকালে ঘুম থেকে উঠার পর মনে বয়ে আনবে সবুজের পরশ। সেই সাথে সন্ধ্যায় বারান্দায় বসে চা পানের মাধ্যমে কেটে যাবে শরীরের সকল ক্লান্তি। কারণ সাজানো সুন্দর বারান্দাটি শান্তির পরিবেশের সৃষ্টি করবে।