এটি অবশ্য লজ্জা বা শিহরণ উভয় কারণে হতে পারে, এরপর আবার সংরক্ষিত বিষয় নিয়ে কথা। অনেকেই মনে করেন সেক্স এমন কি আর জিনিষ, আর এ নিয়ে আবার খোলাখুলি কথা বা আলাপের কি আছে, এটি ক্ষনিকের ভোগ- আনন্দ ছাড়া আর কিছুই নয়। তো যে যাই বলেন না কেন, সেক্স আমাদের জীবনেরই একটি অংশ। আর একে দৈনন্দিন জীবন থেকে আলাদা করে দেখার সুযোগ নেই। যাইহোক সেক্স অনুশীলন আমাদের দৈনন্দিন জীবনে কত খানি গুরুত্ব বহন করে এবং এ থেকে আমরা শারীরিকভাবে কতখানি উপকৃত হই, সেটি নিম্নের ১৪টি সংগত কারণ পড়েই আশাকরি উপসংহারে উপনীত হতে পারব।

১. চুম্বন

প্রতিনিয়ত চুম্বন মুখমন্ডলকে স্বাস্থ্যকর রেখে বারবার দন্ত চিকিৎসকের সরনাপন্ন হওয়ার যন্ত্রণা থেকে মুক্ত রাখে । তা ছাড়া চুম্বন দাঁতকে পরিস্কার রাখে এবং মুখের ভেতর নির্গত যে এসিডের কারণে দাতের সৌন্দর্য ক্ষমতা হ্রাস পায়, সেটিকে কমাতে সহায়তা করে।

২. স্বাস্থ্য

যৌন অনুশীলনের ফলশ্রুতিতে শরীরে অতিরিক্ত স্ত্রী-হর্মোন উৎপাদন হয়, যা হৃদরোগ থেকে মুক্ত রাখাসহ হৃদপিণ্ড এবং রক্তনালীর উন্নতিসাধন করে শরীরকে সতেজ রাখে ।

৩. অঙ্গচালন

সেক্সচর্চা একটি চমৎকার ফলপ্রদ ও সর্বাঙ্গীন দৈহিক অনুশীলন। সপ্তাহে তিনবার যৌন অনুশীলনে শরীরের ক্যালরি জ্বালিয়ে দেহের ৫ শত বা তার অধিক মাংসপেশিকে ক্রিয়াশীল রাখতে সাহায্য করে ।

৪. প্রশান্তি

এটি পরীক্ষিত সত্য যে যৌন অনুশীলনে মানুষের মনে প্রশান্তি ফিরে আসে । মনের স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে বাজারে যে সকল উত্তেজনা প্রশমনকারী পথ্য পাওয়া যায় যৌন অনুশীলন তার চেয়ে দশগুন বেশী ফলপ্রদ।

৫. মানসিক শক্তি

যৌনচর্চা হতোদ্যম ও বিষন্নতা দুর করতে সাহায্য করে। যৌন অনুশীলনে রক্তের ভিতর এনডোফিনাস নামক প্রটিন প্রবাহিত হয় ফলে বিষন্নতা দুর হয়ে মনে আনন্দ-চঞ্চল অবস্হা ফিরে আসে।

৬. মেয়েদের বেলায়

মেয়েরাও যৌনচর্চার মধ্যদিয়ে উপকৃত হয়। যৌন অনুশীলনের মধ্যেদিয়ে মেয়েরা মাসিক ঋতু স্রাব নিয়ন্ত্রণে রাখা ছাড়াও শ্রোণী-সংক্রান্ত পেশীগুলোকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে প্রসাব নিয়ন্ত্রণে রাখে ।

৭. ঘুম

যৌন অনুশীলন মানুষকে সুনিদ্রা যেতে যথেষ্ট সাহায্য করে। যারা বিশৃঙ্খলা ও এলোমেলো জীবন যাপনের কারণে অনিদ্রাজনিত রোগে ভুগেন তাদের জন্য যৌন অনুশীলন একটি কার্যকারী চিকিৎসা।

৮. নিষ্পেষণ

যৌন অনুশীলন শরীরকে শিথিল এবং চাঙ্গা করে। এ ছাড়াও শরীরকে নিরাপদ রাখার পদ্ধতিকে শক্তিশালী করে রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। যৌন মিলনের পর শরীরে যে অতিরিক্ত হরমন উৎপাদন হয় তা দেহে নবশক্তি সঞ্চার করাসহ মন মেজাজকে প্রফুল্ল রাখে।

৯. সৌন্দর্য

মেয়েদের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে যৌন অনুশীলনের গুরুত্ব অপরিসীম। যৌন চর্চায় মেয়েদের শরীরে স্ত্রী-হর্মোন উৎপন্ন হয় যা মেয়েদের চুল এবং ত্বকের লাবন্য বৃদ্ধি করে ।

১০. অক্সিজেনেশন

যৌন অনুশীলনে মানব দেহের কোষে যথেষ্ট পরিমানে অক্সিজেন সরবরাহ বৃদ্ধি পায় এবং এর ফলে জননেন্দ্রীয়, পরিপাকতন্ত্র ও শ্বাসযন্ত্রের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি লাভ করে।

১১. পুরুষের বেলায়

সম্প্রতি একটি গবেষণায় প্রমানিত হয়েছে যে, নিয়মিত যৌন অনুশীলনে পুরুষের বরংবার বীর্য স্খলন ঘটে যা পুরুষদের মূত্রস্থলীর গ্রীবা সংলগ্ন গ্রন্থির ক্যান্সারে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনাকে বিলম্বিত করে ।

১২. ব্যথা বেদনা

যৌনচর্চা একটি বেদনা নাশক ঔষধ ।এটি মাথা ব্যাথার বিরুদ্ধে প্রতিষেধক হিসেবে চমৎকার কাজ করে । এই অনুশীলনে শরীরে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি এবং শিরা ধমনীর উদ্বেগ রহিত করে ।

১৩. কোলেস্টেরল

নিয়মিত যৌন অনুশীলনের মাধ্যমে রক্তের কোলেস্টেরলের পরিমান নিয়ন্ত্রণ রাখা সম্ভব। এই চর্চার ফলে রক্তে ভালো কোলেস্টেরল (এইচ ডি এল ) বৃদ্ধি এবং অতিরিক্ত মন্দ কোলেস্টেরল ( এল ডি এল) হ্রাস পেয়ে রক্তে কোলেস্টেরলের ভারসাম্যতা বজায় থাকে ।

১৪. নাসাল ক্যানজেস্টশন

নিয়মিত যৌন অনুশীলনের ফলে এলার্জি ও এ্যজমা রোগীরা যথেষ্ট উপকৃত হয় । কারণ যৌন অনুশীলন প্রাকৃতিকভাবেই এন্টিহিস্টামিন যা এলার্জি ও এ্যজমা রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে রোগকে প্রশমিত করে ।