এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ১৯ মার্চ আবারও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই জনসভার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। এর আগে সোমবার সেখানে জনসভা করার ঘোষণা দিয়েছিল বিএনপি। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অনুমতি না পাওয়ায় সেখানে জনসভা করতে পারেনি দলটি। সোমবার বেলা সোয়া ১১ টার দিকে জনসভা আয়োজনের নতুন তারিখ ঘোষণা করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব বলেন, আমরা ধৈর্যের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে চাচ্ছি। সংঘাতে যেতে চাচ্ছি না। নিয়মতান্ত্রিকভাবে সকল কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছি। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে জনসভার অনুমতি না দেওয়ায় তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। ক্ষোভ প্রকাশ করছি।

১৯ মার্চ সোমবার নতুন করে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভা করার ঘোষণা দিচ্ছি। প্রত্যাশা করছি, গণতন্ত্রের প্রতি ন্যূনতম শ্রদ্ধাবোধ দেখিয়ে সরকার ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আমাদের জনসভার অনুমতি দেবে। ১৫ মার্চ চট্টগ্রামে, ২৪ মার্চ বরিশালে ও ৩১ মার্চ রাজশাহীতে জনসভা করার কথা জানান মির্জা ফখরুল। সরকার বিএনপির এসব কর্মসূচি পালনে সহযোগিতা করবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, এটা নির্বাচনের বছর। নির্বাচনের বছরে সব রাজনৈতিক দলকে তাদের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগের সুযোগ দেওয়ার দায়িত্ব রয়েছে সরকারের। সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন চাইলে সরকারকেই পরিবেশ তৈরি করতে হবে। তা না হলে নির্বাচন হবে না। আমরা যদি সভা সমাবেশ করতে না পারি, কথা বলতে না পারি, তাহলে নির্বাচন কাকে দিয়ে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান আহমদ আজম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, সহদপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম, বেলাল আহমদ প্রমুখ।

সূত্র: প্রথম আলো