এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: যদি মনে করে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের প্যাটার্ন লক সবচেয়ে ভালো অপশন, তো ভুল ভেবেছেন। এটা আপনার স্মার্টফোনকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেয় না। বিশেষজ্ঞরা দেখেছেন, যেকোনো প্যাটার্ন লক মাত্র ৫ বারের প্রচেষ্টায় খুলে ফেলা সম্ভব।

প্যাটার্ন লক এক ধরনের নিরাপত্তা প্রদানকারী পদ্ধতি যা মোবাইল ফোন বা ট্যাবকে নিরাপত্তা দেয়। এই পদ্ধতিতে মোবাইল ফোনকে খোলার জন্য ৫টি সুযোগ পান ব্যবহারকারীরা। যদি ৫ বারই ভুল করা হয়, তো ডিভাইসটি লক করে যায়। প্রায় ৪০ শতাংশ অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে এই প্যাটার্ন লক চলে।

ব্রিটেনের ল্যানসেস্টারট ইউনিভার্সিটি, চীনের নর্থওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি এবং জার্মানির ইউনিভার্সিটি অব বাথের গবেষকরা জানান, ভিডিও এবং কম্পিউটার ভিশন অ্যালগোরিদম সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে যেকোনো মানুষ ৫ বারের প্রচেষ্টাতেই প্যাটার্ন লক খুলে ফেলতে পারেন।

কেউ তার স্মার্টফোনের প্যাটার্ন লক খোলার সময় যেভাব হাত ঘোরান তা ভিডিও করার মাধ্যমে অনেক কিছুই বোঝা সম্ভব। আবার হ্যাকাররা কারো প্যাটার্ন খোলার সময়কার ফিঙ্গারপ্রিন্টের নড়াচড়া দেখে সফটওয়্যারের মাধ্যমেই লকের প্যাটার্ন বুঝে নিতে পারেন।

এক বিবৃতিতে গবেষকরা বলেন, কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে অ্যালগোরিদম ব্যবহারকারীর ব্যবহৃত প্যাটার্নের সম্ভাব্য কয়েকটি দেখিয়ে দেয়। জরুরি অ্যাকাউন্ট বা অংশের জন্য মানুষ সাধারণত জটিল প্যাটার্ন ব্যবহার করে থাকেন। অনলাইন ব্যাংকিং বা অন্য গোপন বিষয়ে তারা এসব প্যাটার্ন ব্যবহার করেন। স্পর্শকাতর ও জরুরি তথ্যগুলো তারা নিরাপদ রাখতে চান। কিন্তু এই পদ্ধতিতে লক করা দারুণ ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে বলেই জানান এক গবেষক ঝেং ওয়াং।

বিশেষজ্ঞরা ১২০টি অনন্য প্যাটার্ন লক সংগ্রহ করেন ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে। তারা ৯৫ প্যাটার্ন লক খুলে ফেলতে সমর্থ হন ৫ বারের প্রচেষ্টাতেই।

নর্থওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির গুইজিন ইয়ে বলেন, জটিল প্যাটার্নগুলো খুলে ফেলা অনেক সহজ। কারণ এই প্যাটার্নের আঁকিবুকি অন্যগুলোর থেকে ভিন্ন। তাই সহজেই চিহ্নিত করা সম্ভব।

জটিল প্যাটার্নগুলো বিশেষজ্ঞরা প্রথমবারের প্রচেষ্টাতেই খুলে ফেলেছেন। এ ছাড়া সব ধরনের প্যাটার্নের ৮৭.৫ শতাংশই তারা খুলেছেন ৫ বারের প্রচেষ্টার মধ্যেই।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস