kitchenরান্নাঘরে হরেক রকমের টুকিটাকি জিনিসপত্র থাকে। কফিপট, মগ, সিংক, ব্লেন্ডার, কাটার, চামচ, লবণদানি, ঢাকনা ইত্যাদি। কোনোটিই ফেলনা নয়। তবে রান্নাঘর পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি সেখানকার সবগুলো বাসন-কোসন, সেগুলো রাখার জায়গা ও সার্বিক পরিবেশ পরিচ্ছন্ন ও জীবাণুমুক্ত রাখার বিকল্প নেই। ব্যস্ত জীবনযাত্রায় সময়ের বড় অভাব। তাই রান্নাঘর পরিষ্কার করার কাজটি দ্রুত করতে পারলে অবশ্যই ভালো হয়। আসুন, জেনে নিই রান্নাঘরের বিভিন্ন উপকরণ পরিচ্ছন্ন রাখার সাতটি উপায়:

কফিমগ: চীনামাটি বা সিরামিকের তৈরি কফিমগ নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে। প্রতিটি অংশে ভিনেগার ও লবণ মিশিয়ে ঘষে কফির দাগ তুলে ফেলুন। এতে পাত্রটি ঝকঝকে ও সুন্দর থাকবে।

মাইক্রোওয়েভ: মাইক্রোওয়েভ ওভেন ভেতরটা সবচেয়ে দ্রুত পরিষ্কার করতে চাইলে বেশ কিছু ওয়েট পেপার টাওয়েল ভেতরে দিয়ে উচ্চমাত্রায় তিন থেকে পাঁচ মিনিট চালাতে হবে। এতে ওভেনের ভেতরের ময়লা নরম হবে। টাওয়েলগুলো শীতল হলে সেগুলো দিয়ে ভেতরটা মুছে ফেলুন।

ঢালাই লোহার কড়াই: ঢালাই কড়াই কখনোই তরল সাবান দিয়ে ধুতে নেই। এ রকম পাত্রের উপরিতলে যে তৈলাক্ত ননস্টিক আবরণ থাকে, তা ঘষে তুলে ফেলতে পারে এমন কিছু ব্যবহার করে পরিষ্কার করবেন না। তাহলে কীভাবে ধোবেন? লবণ, পানি ও নরম কাপড় দিয়ে ঘষতে হবে। এতে রান্না করার তেল উঠে যাবে।

জঞ্জাল সাফ করে জীবাণুমুক্ত থাকুন: ভাঙা বরফের গুঁড়া, ভিনেগার ও পানি মিশিয়ে রান্নাঘরের বেসিন, সিংক ও পানিপ্রবাহের নলগুলো ঘষে ঘষে পরিষ্কার করতে হবে এবং দুর্গন্ধমুক্ত রাখতে হবে।

সবজি কাটার: সবজি কাটার ধাতব উপকরণের ছোট ছোট ছিদ্রে লেগে থাকে অনেক ময়লা ও সবজির অবশেষ। পরিষ্কার প্যাস্ট্রি ব্রাশ ব্যবহার করে এটি ধুতে হবে। দুই পাশেই সমানভাবে পরিষ্কার করতে হবে।

ব্লেন্ডার: ব্লেন্ডার থেকে ফলের রস বা অন্য পানীয় ঢেলে নেওয়ার পর তরল রাখার অংশটি খুলে নিয়ে সামান্য পানি ও এক ফোঁটা তরল সাবান দিয়ে আবার ব্লেন্ডারটি ২০ সেকেন্ড চালাতে হবে। তারপর সেই তরল মিশ্রণ ঢেলে ফেলে দিয়ে ভেতরটা পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন।

কফিপট: কফিমেকারের কাচের জগটি দ্রুত বাদামি হয়ে পড়ে। কম সময়ে পরিষ্কার করার জন্য কিছু বরফ, লবণ ও লেবু লাগবে। খালি জগটির চার ভাগের এক ভাগ বরফে ভরে নিন। তারপর লেবুর রস, দুই টেবিল চামচ লবণ দিয়ে মুখ বন্ধ করে মিশ্রণটি দুই মিনিট ধরে ঝাঁকান। ভেতরের ময়লা উঠে যাবে।