এসপিবি.এন নিউজ – অনলাইন ডেস্ক: মহিলাদের অর্গ্যাজমের রহস্যে নয়া মোড়। বংশবৃদ্ধির ক্ষেত্রে অর্গ্যাজমের কোনও ভূমিকা নেই, এটাই প্রচলিত ধারণা। তবে, নতুন এক গবেষণা এই তত্ত্বকে খারিজ করে দিয়েছে। বিজ্ঞানীদের দাবি, মহিলাদের যৌনমিলন ক্লাইম্যাক্সে পৌঁছনোর উপর অনেকটাই নির্ভর করে ডিম্বাণু তৈরির প্রক্রিয়া।

বিভিন্ন স্তন্যপায়ী প্রাণীর অভিযোজন নিয়ে নয়া এক গবেষণায় এমনই দাবি করেছেন ইয়েল ও সিনসিনাটি শিশু হাসপাতালের বিজ্ঞানীরা। গবেষক গান্টার ওয়াগনারের দাবি, ‘প্রাথমিক গবেষণার পর মানবদেহের শরীরে এই ঘটনার প্রমাণ মিলেছে।’ ওয়াগনারের পাশাপাশি গবেষক প্যাভলিসেভও মনে করেন, মানব মহিলা দেহের অর্গ্যাজমের লক্ষণ ডিম্বাণু তৈরির ক্ষেত্রে বিশেষ কার্যকরী।

অর্গ্যাজম আর মানব শরীরে সফল বংশবৃদ্ধি সবসময় একইসঙ্গে হয় না। তবে যৌনবিষয়ক বিজ্ঞানীরা বলছেন, যৌনমিলনের চূড়ান্ত তৃপ্তির ফলে মহিলার শরীরে ‘ফিল গুড’ হরমোন প্রোল্যাকটিন ও অক্সিটোসিনের ক্ষরণ শুরু হয়। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, অনেক স্তন্যপায়ীর ক্ষেত্রে এই রিফ্লেক্স প্রক্রিয়া ডিম তৈরিতে বিশেষ সহায়ক হয়ে ওঠে। জেইজেড মলিকিউলার অ্যান্ড ডেভলপমেন্টা ইভোলিউশন জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে এই গবেষণার রিপোর্ট।

প্যাভলিসেভ বলেছেন, বংশবৃদ্ধির ক্ষেত্রে অর্গ্যাজমের কোনও সম্পর্ক আছে কি না এই নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তর্ক-বিতর্ক চলছে। নতুন গবেষণায় এই নিয়ে দ্বন্দ্ব অনেকটাই কেটেছে।